‘আপত্তিকর মন্তব্য’, জয়ের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেবেন মান্নার স্ত্রী

অভিনেতা ও উপস্থাপক শাহরিয়ার নাজিম জয়কে জনসম্মুখে নিঃশর্ত ক্ষমা চাওয়ার কথা বললেন প্রয়াত নায়ক মান্নার স্ত্রী শেলী মান্না। অন্যথায় তিনি আইনানুগ ব্যবস্থা নেওয়ার পদক্ষেপ নেবেন বলেও হুঁশিয়ারি দিয়েছেন। সম্প্রতি ‘জীবনের গল্প’ নামে একটি অনুষ্ঠানে কেবিন ক্রুদের প্রেমঘটিত ব্যাপার এবং তাঁদের বিদেশ থেকে জিনিসপত্র এনে বিক্রির প্রসঙ্গে অতিথিকে প্রশ্ন করেন জয়। এটাকে আপত্তিকর মনে করায় কথাগুলো বলেন শেলী।

‘জীবনের গল্প’ অনুষ্ঠানে অতিথি হয়ে আসেন ক্যাপ্টেন শিকদার। তিনি অভিনেত্রী কুসুম শিকদারের বাবা। সেই অনুষ্ঠানে এভিয়েশনের নানা দিক নিয়ে কথা বলা হয়। সেই সঙ্গে এখানে ক্যাপ্টেন, কেবিন ক্রু ও বিমানবালাদের নিয়ে বিভিন্ন ব্যক্তিগত ঘটনাও উঠে আসে। এভাবে কোনো মানুষকে ডেকে এনে ব্যক্তিগত প্রশ্ন করাকে অবান্তর ও অসম্মানজনক বলে মনে করেন শেলী। তিনি নিজেও বিমানবালা। এ নিয়ে শেলী সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে লেখেন, ‘কেবিন ক্রুদের সঙ্গে প্রেমঘটিত ব্যাপার থেকে শুরু করে বিদেশ থেকে জিনিসপত্র এনে বিক্রির প্রসঙ্গ টেনেছেন। যা অত্যন্ত মানহানিকর এবং আপত্তিকর। এ জন্য জনসম্মুখে নিঃশর্ত ক্ষমা চাইতে হবে। নইলে আমি আইন অনুযায়ী ব্যবস্থা নেব।’

এ সময় তিনি অভিনয়শিল্পী, পরিচালক ও উপস্থাপক জয়কে উদ্দেশ্য করে আরও বলেন, ‘আপনি এ দেশের শিল্পীসমাজকেও চরমভাবে হেয় করেছেন। যাঁরা এ দেশের সাংস্কৃতিক জগৎকে সমৃদ্ধ করেছেন, তাঁদেরও আপনার অনুষ্ঠানে ডেকে এনে অশালীন প্রশ্নে জর্জরিত করেছেন। মৌসুমী, শাবনূর থেকে শুরু করে শিল্পী সমিতির কাউকে ন্যূনতম সম্মান দেখাননি।’

এ প্রসঙ্গে উপস্থাপক জয়ের কাছে জানতে চাইলে তিনি বলেন, ‘আমার অতিথি ছিলেন ক্যাপ্টেন শিকদার। এ অনুষ্ঠানে এভিয়েশন নিয়ে জানার জন্য তাঁকে অনেক যৌক্তিক প্রশ্ন করি। সাধারণত ব্যক্তিগত জীবনে পাইলট, বিমানবালাদের নিয়ে সাধারণ মানুষের কৌতূহল থাকে। তেমনি একটি বিষয় পাইলটদের সঙ্গে এয়ার হোস্টেসদের সম্পর্ক, প্রেম, বিয়ে। কারণ, তাঁরা অনেক দিন একসঙ্গে কাজ করেন। বিষয়গুলো ঘটে। তাই প্রথম প্রশ্নটা সাধারণ মানুষের কৌতূহল মেটানোর জন্য যৌক্তিকভাবে করা হয়েছে। বিদেশ থেকে এ পেশার মানুষদের অনেক পণ্যসামগ্রী আনার সুযোগ থাকে। সে ক্ষেত্রে অনেকে বৈধ ও অবৈধভাবে ব্যবসা করেন। সেটা সঠিক কি না, জানতে চেয়েছি। এই যৌক্তিক প্রশ্নগুলোকে “শেলী ভাবি” অযৌক্তিক মনে করে হয়তো মাইন্ড করেছেন।’শেলী মান্না। ছবি সংগৃহীত।
শেলী মান্না।
জয় আরও বলেন, ‘একটি আলোচনায় অনেক কিছুই আসে। সেটা কিন্তু অমূলক নয়। এখন কোনো কিছু হলেই একটা “হাইপ” তৈরি হয়। সবাইকে বুঝতে হবে, আমরা আধুনিক যুগে নতুন ধারার উপস্থাপনা করছি। সেখানে অনেক প্রশ্ন আসবে। সেটা অতিথি স্মার্টলি উত্তর দেবেন। আমি কোনো অন্যায় প্রশ্ন করিনি। শেলী ভাবিকে আমি সম্মান করি। তাঁর ব্যাপারে আমার কোনো অভিযোগ নেই। তিনি তাঁর স্বাধীনতা মতো মত প্রকাশ করেছেন।’

বেশ কিছুদিন আগে জয়ের নামে নায়িকাদের বিব্রত করা নিয়ে জায়েদ খান ও মিশা সওদাগর অভিযোগ করেছিলেন। তখন জয়ও তাঁদের বিরুদ্ধে পাল্টা অভিযোগ করেছিলেন।

image_pdfপিডিএফ করুনimage_printপ্রিন্ট করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *