সৌরভ গাঙ্গুলীর ফোন না পাওয়ায় স্বপ্ন থেকেই যায় তামিমের

ঢাকা টেলিগ্রাফ: ২০১২ সালের আইপিএলে সৌরভ গাঙ্গুলীর নেতৃত্বে পুনে ওয়ারিয়র্সে জায়গা হয়েছিল তামিম ইকবালের। কিন্তু আইপিএলের স্বাদ নেওয়ার সুযোগ তেমন পাননি। খেলতে পারেননি একটি ম্যাচও। তবে সে সময় একটি ম্যাচ খেলার জন্য মধ্যরাত পর্যন্ত অপেক্ষায় ছিলেন বাংলাদেশি ওপেনার।

সৌরভ গাঙ্গুলীর ফোন না পাওয়ায় আইপিএলে ম্যাচ খেলার স্বপ্ন থেকেই যায় তামিমের। সম্প্রতি ফেসবুকে ভারতের ওপেনার রোহিত শর্মার সঙ্গে লাইভ আড্ডায় পুরোনো ঘটনাটি প্রকাশ করেন তামিম।

এ ব্যাপারে তামিম বলেন, সে সময় দাদা (সৌরভ) বলেছিলেন, পরের ম্যাচে আমাকে খেলার চিন্তা-ভাবনা করছেন তিনি। একই সঙ্গে এটিও বলেছিলেন, খেলার সুযোগ পাওয়া যাবে কি না, সেটা নিশ্চিত নন। যদি পরের ম্যাচে খেলানোর সিদ্ধান্ত হয়, তবে রাতে কল করবেন। আমি খেলার জন্য খুব বেশি আশা করেছিলাম। এ জন্যই আমার ঘুম হয়নি এবং ফোনকলের জন্য মধ্যরাত পর্যন্ত অপেক্ষা করেছি। কিন্তু ফোনকল আসেনি।

এর পর থেকে আইপিএলে ড্রাফটের জন্য তামিম আর কোনো ডাক পাননি। এ সম্পর্কে বাংলাদেশি তারকা বলেন, পরে আইপিএলের কোনো দলের কাছ থেকে ডাক পাইনি আমি। কিন্তু আমি যখন পুনে ওয়ারিয়র্সে ছিলাম, আমি অনেক বেশি উপভোগ করেছি। আমি অনেক কিছুই শিখেছি।

তামিমের মুখে এমন ঘটনা শুনে সান্ত্বনা দেন রোহিত, ‘আইপিএল এমনই। যদি কিছু ঘটে থাকে, তবে অনেক কিছুর ওপর নির্ভর করে। বছরে ১০ মাসের মধ্যে আমরা একে অপরের প্রতিপক্ষ থাকি। কিন্তু আইপিএলের দুমাস, আমরা কাছাকাছি আসি, নিজেদের মধ্যে শেয়ার করি, সম্পর্ক তৈরি করি এবং একে অপরকে জানতে পারি।

আইপিএলের সবচেয়ে সফল দল মুম্বাই ইন্ডিয়ানসকে নেতৃত্ব দিচ্ছেন রোহিত শর্মা। মুম্বাইয়ের সাফল্যের পেছনের ঘটনা তুলে ধরে রোহিত বলেন, মুম্বাই দলটি অনেক বেশি পেশাদার। আইপিএল হয় দুমাস, কিন্তু মুম্বাইয়ের কর্মকর্তারা দলের শক্তি ও দুর্বলতা নিয়ে সারা বছর কাজ করেন। তৃণমূল থেকে খেলোয়াড় বাছাই করে তারা এবং এটি নিশ্চিত করে যে, সিনিয়র দলের সঙ্গে সারা বছর তারা অনুশীলন করতে পারে।

image_pdfপিডিএফ করুনimage_printপ্রিন্ট করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *